দারিদ্রতা থাকার কারণ । যে কারণে অভাব দূর হয় না-দারিদ্রতা দূর করার আমল ।

0 1,044

সুপ্রিয় বাণী কথার পাঠক মন্ডলী আশা করি মহান আল্লাহ তা-আলার রহমতে আপনারা সকলে ভালো আছেন। আজকে আমরা এমন একটি বিষয় নিয়ে আলোচনা করব তা আপনারা হয় তো অনেকে জানেন না। যে কারণে অভাব দূর হয় না-দারিদ্রতা থাকার কারণ আজকে এই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করব ।

আমাদের আজ আলোচনার বিষয় হচ্ছে, মানুষ গরিব হয় সাতটি কাজ করলে আর সেই সাতটি কাজ বাদ দিলে মানুষের আর দারিদ্রতা বা অভাব আসবেনা। আমরা আজ এই নিয়ে আলোচনা করব। আর কথা না বাড়িয়ে চলুন শুরু করি।

প্রিয় বাণী কথার পাঠক বৃন্দ হজরত মুহাম্মদ সাঃ এর সাহাবী হজরত আব্দুর রহমান ইবনে আউয়ুফ রাঃ ও হজরত ওসমান রাঃ আমরা এই দুই সাহাবিকে সবাই চিনি। তার ছিলেন অনেক ধন সম্পদের মালিক।

তাদের হালল রুজিতেও ধন সম্পদের কমতি ছিল না। তাদের এই সম্পত্তি ইসলামের জন্য দান করে
দিয়েছিলেন। আজকের এই দুনিয়াতে অনেক দিনদার মুসলিম আছেন যারা রাসূল সাঃ এর ধনী সাহাবীদের মতো হালাল রুজিতে অনেক সম্পত্তি বানিয়েছে।

এবং সেই অর্থ দিন এবং ইসলামের জন্য ব্যায় করে যাচ্ছে। অনেক সময় আমাদের মনের অজান্তে ৭টি ভুল রয়েছে যার কারণে আমাদের দারিদ্রতা আমাদের ছাড়েনা।

সুপ্রিয় বাণী কথার পাঠক বৃন্দ  যাদের অর্থ সম্পদ নাই, যারা দরিদ্র হয়েছে তাদের অনেক কষ্ট হয়। এই কারন গুলোর  কারনেই কষ্ট সাধারণত আমাদের মাঝে আসতেছে।

আজ আপনাদের কাছে এমন একটি বিষয় নিয়ে আলোচনা করব যে, বিষয় গুলো আমাদের মাঝে দারিদ্রতা নিয়ে আসে। এই বিষয়গুলোর কাছে থেকে আমরা যদি দূরে থাকতে পারি। দারিদ্র আমাদের কাছ থেকে পালাবে ইনশা-আল্লাহ। তো আসুন আমরা জেনে নেই সেই বিষয়গুলো।

১। তারাহুরা করে নামাজ আদায় করাঃ

তারাহুরা করে নামাজ আদায় করলে তার দারিদ্রতা আছে। অর্থাৎ তারাহুরা করে নামাজ আদায় করা একবারে বাদ দিতে হবে। নামাজের সময় মনে রাখতে হবে, আপনার সামনে মহান আল্লাহ তা-আলা তার সামনে আছেন। আপনারা কখনো নামাজের সময় তারাহুরা করবেন না।

২। দাঁড়িয়ে প্রসাব করাঃ

যারা দাঁড়িয়ে প্রসাব করে তারা এখন থেকে ছেড়ে দেন এই বদ অভ্যাসটি। এটি শয়নানের একটি রাস্তা। দারিদ্রতার অন্যতম কারণ হল দাঁড়িয়ে প্রসাব করা।

৩। যারা প্রসাবের জায়গায় অজু করে তাদের দারিদ্রতা আসতে পারেঃ

যারা প্রসাবের জায়গায় অজু করে এতে করে দারিদ্রতা আসতে পারে। সে জন্য প্রসাবের জায়গায় অজু না করাই ভালো। আর বিশেষ করে বাথ রুমে অজু ত্যাক করা উচিৎ।

একান্ত যদি ঐ বাথ রুমে অজু করতে হয় তাহলে একটু দূরে সরে অজু করতে হবে।

৪। দাঁড়িয়ে পানি পান করলেঃ

আমরা অনেকে জানি দাঁড়িয়ে পানি পান করলে সেটা মৃত্যুর ও কারন হতে পারে। আমরা যারা অতদিন না জেনে দাঁড়িয়ে পানি পান করেছি, তা আজ থেকে বাদ দিব। সুতরাং আমরা আর কেউ দাঁড়িয়ে পানি পান কবব না।

এটাই মহানবী সাঃ এর সুন্নত। আর তিন নিশ্বাসে পানি পান করতে হয়। আর যদি কেউ দাঁড়িয়ে পানি করে তার দুয়ারে দারিদ্রতা হানা দেবে।

৫। যারা ফু দিয়ে বাতি নেভায়ঃ

যারা বাতি, মোমবাতি ও অন্যান্য এই জাতীয় কিছু জিনিস ফু দিয়ে নেভায় তাদের দারিদ্রতার সামনে দাঁড়িয়ে যায়। যারা এই কাজ করে তারা আজ থেকে বাদ দিন। নইলে আপনার দারিদ্রতা আসতে পারে।

৬। দাঁত দিয়ে যারা নখ কাটেঃ

আমাদের অনেকের মাঝে এই বদ অভ্যাসটি আছে। যারা হাতের নখ দাঁত দিয়ে কাটে। যাদের এই বদ অভ্যাসটি আছে তারা আজ থেকে এই বদ অভ্যাসটি বাদ দিন। আর যদি বাদ না দেন তাহলে আপনার দুয়ারে দারিদ্রতা আসবে।

মহান আল্লাহ তা-আলার দরবারে ইসতেকফার পড়ুন আর বলুন হে আল্লাহ আমি আর এই বদ অভ্যাসটি করব না। তবে দরিদ্রতা আর আপনার দুয়ারে আর আসনেনা।

৭। যারা খাবারের পর পরিধেয় বস্তু দ্বারা মুখ সাফ করেঃ

যারা খাবারের পর পরিধেয় বস্তু দ্বারা মুখ সাফ করে তাদের দারিদ্রতা আসবে। সাবধান এটি আর করবেন না। এটি একটি অসামাজিক কাজ। যার ফলে আপনি খাবারের জীবানু নিয়ে আপনি কাজ করছেন। আর পরিধেয় বস্তুটি নোংরা করে ফেলছেন। পরিচ্ছন্ন ব্যক্তিরা এ কাজটি করতে পারে না।

তারপরও যদি কেউ করে থাকেন তাহলে এটি বাদ দিবেন। তা না হলে আপনার দারিদ্রতা পিছু ছাড়বে না। আপনারা সবসময় সাবধান থাকবেন যাতে করে এ কাজটি আপনি না করেন এবং অন্য কেউ করলে তা বাধা দিবেন।

সুপ্রিয় বাণী কথার পাঠাক বৃন্দ, এই ৭টি বিষয় গুলো যদি আপনার মাঝে থেকে থাকে তাহলে আপনি আজ থেকে এই বদ অভ্যাটি বাদ দিন। আর যদি বাদ দিতে না পারেন তাহলে আপনার দারিদ্রতা পিছু ছাড়বে না। আমরা সকলে মহান আল্লাহ
তা-আলার কাছে পানাহ চাই অতদিন যা করেছি তা যেন মাফ করে দেয়। এবং আমরা যেন সকলে আল্লাহ ও তার রাসূলের পথে চলতে পারি আল্লাহ যেন আমাদের কে সেই তৌফিক দান করেন। আমিন

আরও পরতে পারেন

শরীরে শক্তি, সম্পদ ও সম্মান পাওয়ার জন্য যেসব দোয়া প্রতিদিন পড়তে হবে

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More