শয়তান কেন আদম আলাইহিস সাল্লাম কে সিজদা করল না

শয়তান কেন আদম আলাইহিস সাল্লাম কে সিজদা করল না

আসসালামু আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহ। সুপ্রিয় বাণী কথার পাঠক বৃন্দ, আশা করি আপনারা সবাই  মহান আল্লাহ তায়ালার অশেষ রহমতে ভালো আছেন। আমিও মহান আল্লাহ তায়ালার অশেষ মেহেরবানীতে আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি।

মহান আল্লাহ তায়ালা সর্বপ্রথম ফেরেশতা সৃষ্টি করবেন। এবং ফেরেশতারা সহ মহান আল্লাহ আসমানে থাকবেন। এই প্রত্যাশা আর মহান আল্লাহতালার সমস্ত ইবাদত করত ফেরেশতারা নুরের তৈরি।

তারা সবসময় মহান আল্লাহ তাআলার ইবাদত করত। তারা মহান আল্লাহতালার সমস্ত আদেশ-নিষেধ মাটি দিয়ে মানুষ তৈরি করার সিদ্ধান্ত সিদ্ধান্ত নিলেন। যে মাটি দিয়ে মানুষ তৈরি করবেন। তখন ফেরেশতারা বলল যে আল্লাহ তুমি কেন মানুষ তৈরি করবে।

তখন বলল এই মানুষ আমার ইবাদত করবেন। তখন ফেরেশতারা বলল যে আল্লাহর ইবাদত করার থেকে ফিতনা ফ্যাসাদ বেশি করবে। কিন্তু মহান আল্লাহতালা বলল যে মানুষ তার করবে। তাই মানুষ তৈরি করার সিদ্ধান্ত নিলেন নাম মান্যতা।

যখন তিনি মানুষ তৈরি করলেন তখন তাদের নির্দেশ দিলেন। এই মানুষটিকে সিজদা করার জন্য সবাই এই মানুষটিকে সিজদা করল। কিন্তু একজন ফেরেশতা এই মানুষটিকে সিজদা করল না।

যে ফেরেশতা মানুষটিকে সিজদা করল না সে ফেরেস্তার নাম হল ইবলিশ। আমাদের আজকের আলোচনার ইবলিশ কেন মানুষকে সেজদা করেনি।

চলুন শুরু করা যাক আমাদের আজকের আলোচনাটি

মহান আল্লাহতালা মাটি দিয়ে মানুষ তৈরি করেছেন। এবং তিনি ফেরেশতাদের তৈরি করছেন নূরের তৈরী। যখন তিনি মাটি দিয়ে মানুষ তৈরি করলেন। তখন তিনি সবাইকে বললেন এই মানুষটিকে সিজদা করার জন্য।

কিন্তু ফেরেশতারা সবাই এই মানুষটিকে সিজদা করল। কিন্তু একজন এই মানুষটিকে সিজদা করল না কারণ তার অহংকার বোধ। তিনি অহংকার করতেন যে আমি নূরের তৈরী আর মানুষটি মাটির তৈরি আমি কেন এই মানুষটিকে সেজদা করব। কারণ মাটির তৈরী মানুষ আমার থেকে অনেক নিচের আর আমি ফেরেশতা আমি অনেক শক্তির অধিকারী।

কিন্তু এই মানুষটি কোন শক্তির অধিকারী নয় তাই তিনি সিজদা করতে অপারগতা করলেন। এতে মহান আল্লাহতালা শয়তানের উপর অসন্তুষ্ট এবং তিনি অত্যন্ত রেখেছেন।

এবং শয়তানকে ফেরেশতা পথ থেকে বিতাড়িত করলেন। তার কাছ থেকে রহমত বর্ষিত হলো না। তখন মহান আল্লাহতালার কাছে শয়তান এমন ক্ষমতা চাইলেন। যাতে সারা জীবন শয়তান মানুষদের বিপথগামী করতে পারে।

তাই মহান আল্লাহতালার কাছে চাইলেন। হে আল্লাহ আপনি তো আমাকে আপনার রহমত থেকে বঞ্চিত করলেন। কিন্তু আপনি আমাকে এমন শক্তি দিন আমি যেন সারা জীবন মানুষকে ধোঁকা দিতে পারি সারাজীবন।

মানুষকে অন্যায় পথে নিয়ে আসতে পারি তখন মহান আল্লাহতালা তাই করলেন। তিনি মহান আল্লাহতালা শয়তানকে এই শক্তি দিলেন যেন শয়তান সারা জীবন মানুষকে অপশক্তির দিকে নিয়ে যেতে পারে কিন্তু যদি কোন মানুষ মহান আল্লাহতালা কে ভালবাসে।

এবং উনার এবাদত করতে চায় তাকে কখনো সে মানুষটির শয়তানের ডাকে সাড়া দিবে না। শয়তান তাকে ডাকুক না কেন খারাপ কাজ করার জন্য কিন্তু কোন মানুষ। যদি মহান আল্লাহ তাকে ভালোবাসে তাহলে মানুষ সেই শয়তানের ডাকে সাড়া দিবেনা

উপরের আলোচনা থেকে আমরা এই সিদ্ধান্তে উপনীত হতে পারি যে। ইবলিশ এর অহংকার বোধ এর কারণেই ইবলিশ হযরত আদম আলাইহিস সালামকে সিযদাহ করেনি।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More