২০৫০ সালে পৃথিবীতে যে ধর্মের মানুষ সব থেকে বেশি হবে?

যে ধর্মের মানুষ সব থেকে বেশি হবে ২০৫০ সালে

0 7

Sponsored

আসসালামু আলাইকুম ওয়ারাহমাতুল্লাহ। সুপ্রিয় বাণী কথার পাঠক বৃন্দ, আশা করি আপনারা সবাই  মহান আল্লাহ তায়ালার অশেষ রহমতে ভালো আছেন। আমিও মহান আল্লাহ তায়ালার অশেষ মেহেরবানীতে আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি।

আমাদের পৃথিবীতে বসবাস করে ৭৫০ কোটি মানুষ। এই পৃথিবীতে প্রচলিত রয়েছে অনেক অনেক ধর্ম। প্রতিটা মানুষই কোন না কোন ধর্মে বিশ্বাসী। যারা ধর্মে বিশ্বাসী তারা আস্তিক। আর যারা ধর্মে বিশ্বাসী না তারা নাস্তিক। নাস্তিকের সংখ্যা নেহাত কম নয়।

পৃথিবীতে জনপ্রিয় ৪ টি ধর্ম রয়েছে। তার মধ্যে প্রথমটি হচ্ছে খ্রীষ্টান তারপর একটি হচ্ছে ইসলাম ও এরপর হচ্ছে হিন্দু ও বুদ্ধ। যদিও জনসংখ্যার বিচারে খ্রিস্টান ধর্ম অনেক উপরে। রয়েছে। খ্রিস্টান ধর্মালম্বী জনসংখ্যা অনেক। কিন্তু আগামী ২০৫০ সালে কোন ধর্মের জনসংখ্যা সবথেকে বেশি? হবে তা আমাদের জানা প্রয়োজন।

২০৫০ সালে যেমন পৃথিবী হবে অনেক উন্নত। তেমনি জনসংখ্যা হবে অনেক বেশি। বর্তমান বিশ্বের অধিকাংশ দেশ রয়েছে ইউরোপ ও আমেরিকা মহাদেশের জুড়ে। এভাবে বিভিন্ন মহাদেশ জনসংখ্যার হার বিভিন্ন রকম। বিভিন্ন মহাদেশে জনসংখ্যার সংখ্যাও বিভিন্ন রকম  কোন অঞ্চলের জনসংখ্যার হার কেমন বৃদ্ধি পাচ্ছে।

কোন অঞ্চলের জনসংখ্যার হার কেমন কমে যাচ্ছে? এর উপর নির্ভর করে ধারণা করা যায়, যে আগামী কয়েক বছরের জনসংখ্যা কেমন বৃদ্ধি পাবে? কোন ধর্মাবলম্বীদের জনসংখ্যা বৃদ্ধি পাবে? আজকের আলোচনায় জানতে পারব 2050 সাল নাগাদ বিশ্বে কোন ধর্মাবলম্বী জনসংখ্যা বেশি হবে? চলুন জেনে নেয়া যাক আলোচনাটি বিস্তারিতভাবে।

Sponsored

বর্তমান বিশ্বে যেসব দেশের জনসংখ্যার হার বেশি। অর্থাৎ যেসব সব দেশের জনসংখ্যা দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। সেসব দেশ হচ্ছে মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ। আফ্রিকার কিছু মুসলিম জনসংখ্যার দেশে জনসংখ্যার হার এতটাই বৃদ্ধি পাচ্ছে যে, তাদের জনসংখ্যার হার কমানোর জন্য বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ করা হচ্ছে।

তেমনি ভাবে এশিয়া ও বিভিন্ন অঞ্চলের মুসলমানদের জনসংখ্যা হার অত্যন্ত হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার যদি কখনো কোনো কারণে কমে যায়। বা স্থির হয়ে যায়। তবুও মুসলমানদের জনসংখ্যা কমে যাবে না। কারণ সারা পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চলে মুসলিম জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার বেড়েই যাচ্ছে।

একটি জরিপে দেখা গেছে, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান এর তুলনায় মুসলিম পরিবারের সন্তান জন্মদানের হার বেশি। আরো বলা হয়েছে যে , অর্থনৈতিক কারণ ভৌগোলিক কারণ বা যেকোনো প্রতিকূল অবস্থায়ও যদি জন্মহার কমে যায়। তবুও বিভিন্ন অঞ্চলের  মুসলমানদের জনসংখ্যার পরিমাণ কম হবেনা। অন্যান্য দেশের জনসংখ্যার জন্মহার দিয়ে জনসংখ্যা বেড়ে যাবে।

জরিপে আরও বলা হয়েছে যে, হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান দেশের জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার যে রকম ভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। আর মুসলমানদের জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার যে রকম ভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। আগামী দুই দশকে তা কখনো মুসলমানদের ধারে কাছে আসবে না অর্থাৎ ২০৫০ সাল নাগাদ ইসলাম ধর্মের অনুসারীদের সংখ্যা সবথেকে বেশি হবে।

বিভিন্ন জরিপ ও বিভিন্ন পরিসংখ্যানে থেকে  দেখা যায় যে, অন্যান্য ধর্মালম্বীদের জনসংখ্যার হারের তুলনায়। মুসলীম ধর্মাবলম্বিদের জনসংখ্যার হার অত্যন্ত বেশি। ২০৫০ সাল নাগাদ কোনো ধর্মই মুসলমানদের জনসংখ্যা ধারে কাছেই থাকবে না।

অর্থাৎ ২০৫০ সাল নাগাদ পৃথিবীতে মুসলিম ধর্মালম্বীদের সংখ্যা সবথেকে বেশি হবে।

Sponsored

Leave A Reply

Your email address will not be published.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More