কবর জিয়ারতের দোয়া ও নিয়ম সহীহ পদ্ধতিতে

কবর জিয়ারতের দোয়া ও নিয়ম

কবর জিয়ারত করার সময় পরকালীন জীবনের কথা স্বরণ হয়। কবর জিয়ারতের কারণে মানুষের মৃত্যুর কথা স্বরণ হয়। আমাদের স্থায়ী জীবন অর্থাৎ আখিরাতের প্রতি উৎসাহ পাওয়া যায়। কবর জিয়ারতের দোয়া এর কারণে আমাদের হৃদয় বিনম্র হয়। সকল প্রকার গুনাহ ও অন্যায় থেকে ক্ষমা চাওয়ার মানসিকতা সৃষ্টি হয়। আমাদের আমল সমূহ পালনের প্রতি আগ্রহ বাড়ে।তাইতো রাসুল (সা) কবর জিয়ারত করতে নির্দেশ দিয়েছেন। কবর জিয়ারত করা নবী করীম (সা) এর সুন্নত সমূহের একটি। নবী করীম (সা) আমাদের কবর জিয়ারতের দোয়া শিক্ষা দিয়ে গেছেন। এজন্য এখন আমরা কবর জিয়ারতের দোয়া বাংলা উচ্চারণ সহ সহীহ নিয়ম শিখবো।

কবর জিয়ারতের দোয়া বাংলা ও নিয়ম সহীহ পদ্ধতিতে

ইসলামের প্রথম দিকে কবর জিয়ারত করার অনুমতি ছিল না। কবর জিয়ারত করার অনুমতি দেয়ার অন্যতম কারণ হল- কবর জিয়ারতের ফলে পরকালীন জীবনের কথা স্বরণ হয়। হাদিস শরীফে এসেছে, হযরত মুহাম্মদ (সা) বলেন, আমি তোমাদের কবর জিয়ারতে নিষেধ করেছিলাম, এখন থেকে কবর জিয়ারত করো। কারণ, তা দুনিয়াবিমুখতা এনে দেয় এবং আখিরাতের কথা স্মরণ করিয়ে দেয়। (সুনানে ইবনে মাজাহ, হাদিস : ১৫৭১)

কবর জিয়ারতের সময় কি কি দোয়া পড়তে হয়

হযরত আবু হুরাইরা (রা.) থেকে বর্ণিত, হযরত মুহাম্মদ (সা) একটি কবর জিয়ারত করার সময় বলেন,

আরবিতে  কবর জিয়ারতের দোয়া :  السَّلامُ عَلَيْكُمْ دَارَ قَوْمٍ مُؤمِنينَ وإِنَّا إِنْ شَاءَ اللَّهُ بِكُمْ لاحِقُونَ

কবর জিয়ারতের দোয়া বাংলা উচ্চারণ : আসসালামু আলাইকুম দারা ক্বাওমিম মুমিনিন ওয়া ইন্না ইনশাআল্লাহু বিকুম লা-হিকুন।

কবর জিয়ারতের দোয়া বাংলা অর্থ : মুমিন এই ঘরবাসীদের ওপর শান্তি বর্ষিত হোক। ইনশাআল্লাহ আমরা আপনাদের সঙ্গে মিলিত হবো। (সহিহ মুসলিম : ২৪৯)

আবদুল্লাহ ইবনে আব্বাস (রা.) থেকে বর্ণিত, নবী করীম (সা.) মদিনার কবরবাসীর পাশ দিয়ে যাওয়ার সময় কবর জিয়ারতের উদ্দেশ্যে এই দোয়া পাঠ করেন,

আরবিতে কবর জিয়ারতের দোয়া : السَّلاَمُ عَلَيْكُمْ يَا أَهْلَ الْقُبُورِ يَغْفِرُ اللَّهُ لَنَا وَلَكُمْ أَنْتُمْ سَلَفُنَا وَنَحْنُ بِالأَثَرِ

কবর জিয়ারতের দোয়া বাংলা উচ্চারণ : আসসালামু আলাইকুম ইয়া আহলাল কুবুর; ইয়াগফিরুল্লাহু লানা ওয়ালাকুম, আনতুম সালাফুনা ওয়া নাহনু বিল আ-সার।

কবর জিয়ারতের দোয়া বাংলা অর্থ : হে কবরবাসী! তোমাদের ওপর শান্তি বর্ষিত হোক। আল্লাহ আমাদের ও তোমাদের ক্ষমা করুন, তোমরা আমাদের আগে কবরে গিয়েছ এবং আমরা পরে আসছি। (সুনানে তিরমিজি, হাদিস : ১০৫৩)

সহীহ পদ্ধতিতে কবর জিয়ারতের নিয়ম

আমরা অনেকে সহীহ পদ্ধতিতে কবর জিয়ারতের নিয়ম জানি না। তাই আজ আমি আপনাদের জানিয়ে দেবো কবর জিয়ারতের নিয়ম সম্পর্কে বিস্তারিত। নিচে কবর জিয়ারতের নিয়ম সম্পর্কে আলোচনা করা হল  –

কবর জিয়ারতের নিয়ম

কবরের কাছে যাওয়ার পর সর্ব প্রথম কবর জিয়ারতের দোয়া পড়তে হবে। কবর জিয়ারতের দোয়া বাংলা অথবা আরবিতে যে ভাবে আপনি উচ্চারণ করতে পারেন সে ভাবে করবেন। এরপর দরুদ শরীফ ও বিভিন্ন সুরা পড়তে হবে। তারপর মৃত ব্যক্তির জন্য বা কবর বাসীর মাগফিরাতের জন্য দোয়া করতে হবে।

হাদিসে কবর জিয়ারতের ক্ষেত্রে কিছু সুরার বিশেষ ফজিলতের কথা উল্লেখ করা হয়েছে। পাশাপাশি দরুদ শরীফের ফজিলতের কথাও এসেছে। তাই দরুদ শরীফ, সুরা ফাতিহা, সুরা ইখলাস, আয়াতুল কুরসি ও অন্য যেসব সুরা সহজ মনে হয়, সেগুলো পড়ে সওয়াব উপহার দিতে হবে।

কবর জিয়ারতের সময় কবর সামনে রেখে দুই হাত তুলে দোয়া করা উচিত না। তাই কবরকে পেছনে রেখে কিংবা কবরের দিকে পিঠ দিয়ে এরপর কিবলামুখী হয়ে কবর জিয়ারতের দোয়া করতে হবে। আবার কেউ চাইলে হাত না তুলে মনে মনে কবর জিয়ারতের দোয়া করতে পারেন, (ফাতাওয়ায়ে আলমগিরি খণ্ড ৫, পৃষ্ঠা ৩৫০, কিতাবুল কারাহিয়্যা)।

সপ্তাহের শ্রেষ্ঠ দিন জুমার দিন কবর জিয়ারত করা সুন্নাত। রাসূল (সা.) বলেন, যে সন্তান প্রতি জুমায় তার মা-বাবা বা তাদের একজনের কবর জিয়ারত করবে, তাদের কে আল্লাহ তাআলা ক্ষমা করে দেয়া হবে এবং মা-বাবার সঙ্গে সদ্ব্যবহারকারীদের মধ্যে গণ্য করা হবে। (আল মুজামুল আউসাত : ৬১১৪)।

কবর জিয়ারতের সময় যেসব কাজ বর্জনীয়

রাসূল ( সাঃ ) কবর জিয়ারতের কিছু নিয়ম মুসলমানদের জন্য নির্ধারণ করে দিয়েছেন। সেই নিয়ম মেনে কবর জিয়ারতের দোয়া করার সময় কবরের কাছে গিয়ে এমন কোনো কাজ করা যাবে না, যা শিরক কিংবা বিদাআতের পর্যায়ে চলে যায়। কবর জিয়ারতের সময় যে কাজ গুলো করা যাবে না তা হল-

  • কোনো ভাবেই কবরবাসীর কাছে কোনো কিছু চাওয়া যাবে না।
  • কবরের মাটি ছুঁয়ে সালাম বা সেজদা করা যাবে না।
  • এমনকি কবরে মানত বা দান-খয়রাত তথা গরু, ছাগল, হাঁস-মুরগি ডিম দেয়া যাবে না।

হজরত ইবনে আব্বাস রাদিয়াল্লাহু আনহু বলেন, রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম নারী কবর জিয়ারতকারী ও তার ওপর মসজিদ নির্মাণকারীদের এবং তাতে বাতি জ্বালানো ব্যক্তিদের অভিশাপ দিয়েছেন। (আবু দাউদ)

আল্লাহ তাআলা আমাদের সকলকে সহীহ শুদ্ধ ভাবে কবর জিয়ারতের দোয়া ও নিয়ম মেনে আমল করার তৌফিক দান করুন। এবং মহান আল্লাহ আমাদের সকলকে হেদায়েত দান করুন। আমিন

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More