মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া আরবি ও বাংলা অর্থ

মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া

আল্লাহর ঘর মসজিদে প্রবেশের যেমন দোয়া রয়েছে। তেমনি মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া রয়েছে। মানুষ কে পার্থিব চাহিদা পূরণের জন্য ইবাদতের পর মসজিদ থেকে বের হতে হয়। আর মসজিদ থেকে বের হওয়ার সময় তাকে নিয়ম মেনে বের হতে হয়। অনেক মুসলমান আজ মসজিদ থেকে বের হওয়ার নিয়ম জানে না। তারা জানে না মসজিদে কি বলে ঢুকতে হবে আর কি বলে বের হতে হবে। অনেকে মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়ার অর্থ জানে না। তারা যদি এই দোয়ার ফজিলত জানতো। তাহলে হয়তো সবাই এই দোয়া টি পড়ে নিতো। তাই আজ আমি আপনাদের জানাতে এসেছি মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া আরবি। যারা আরবি জানে না তারা অবশ্যই মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া বাংলা পড়ে নেবেন। চলুন তাহলে বন্ধুরা শুরু করি আমাদের আলোচনার মূল বিষয় মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া সম্পর্কে বিস্তারিত।

পবিত্র ঘর মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া

মসজিদ ইবাদত ও বরকতময় জায়গা। এই ঘরে ঢুকলে আল্লাহর আরশে আজিম থেকে রহমত বরকত ঝরতে থাকে। সে জন্য মসজিদে ঢুকতে হলে আগে ডান পা দিয়ে মনে মনে মসজিদে প্রবেশের দোয়া পড়ে ঢুকতে হয়। মসজিদে প্রবেশের পর ইবাদত করে জীবিকার জন্য আবার মানুষ কে বের হতে হয়। কিন্তু অবশ্যই মসজিদ থেকে বের হওয়ার নিয়ম অনুসরন করে বের হতে হবে।

হাদিসে আছে মসজিদ থেকে বের হওয়ার সময় প্রথমে বাম পা দিয়ে বের হতে হবে। আর মনে মনে মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া বলতে হবে। আল্লাহর রাসূল বলেন, কেউ যদি মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া বলে বের হয়। আল্লাহ তাআলা তার রিযিকের ফয়সালা করে দেবেন। তাই আমাদের সকলের উচিত মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া আরবি না পারলেও অন্তত মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া বাংলা পাঠ করার চেষ্টা করা। নিচে মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া টি দেওয়া হলো।

হাদিসের বর্ণনা অনুযায়ী মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া

নবী করিম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম হতে, মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া টি সাব্যস্ত আছে তা হলো।

প্রার্থনাগার মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া আরবী : بسم الله والصلوة والسلام على رسول الله صلى الله عليه وسلم اللهم انى اسئلك من فضلك

মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া বাংলা : বিসমিল্লাহি ওয়াসসালাতু ওয়াসসালামু আলা রাসূলিল্লাহি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আল্লাহুম্মা ইন্নি আসআলুকা মিন ফাদলিকা।

মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়ার অর্থ : আল্লাহ তায়ালার নামে শুরু করছি। দরুদ ও সালাম বর্ষিত হোক রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্ল মের ওপর। আয় আল্লাহ আমি আপনার কাছে আপনার অনুগ্রহ প্রার্থনা করছি। (মুসলিম, নাসায়ী, মুসান্নামে ইবনে আবি শায়ব ১/২৯৮। হিসনে হাসীন। যাদুল মাআদ ২/৩৭৬)।

প্রার্থনাগার মসজিদ থেকে বের হওয়ার নিয়ম

সব আমলের যে রকম নিয়ম আছে, ঠিক তেমনি মসজিদ থেকে বের হওয়ার নিয়ম রয়েছে। মসজিদ থেকে বের হওয়ার নিয়ম অনুযায়ী বাম পা আগে বের করা এবং মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া করা সুন্নত। কিন্তু আজ অনেকেই এই সুন্নত পালন করতে পারি না। তবে এটি খুবই মামুলি ও সাধারণ একটি বিষয় যে, ডান পা দিয়ে মসজিদে প্রবেশ করা এবং বাম পা দিয়ে বাহির হওয়া। আর মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া আরবি বলা। আমরা যখন হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) এর মসজিদ থেকে বের হওয়ার নিয়ম ও সুন্নত পালন করবো। তখন এই সাধারণ আমলটুকু আল্লাহ তায়ালার মহাব্বত ও ভালবাসা লাভের সোপান হিসেবে কাজ করবে।

মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া এবং প্রবেশের মধ্যে পার্থক্য : খুবই সংক্ষিপ্ত মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া টি। আমরা যখন মসজিদ থেকে বের হবো তখন এই সংক্ষিপ্ত দোয়াটি পড়বো, আল্লাহুম্মা ইন্নি আসআলুকা মিন ফাদলিক। হে আল্লাহ আমি আপনার নিকট হতে কল্যাণ প্রার্থনা করছি এটি হলো মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়ার অর্থ। খেয়াল করুন, আপনি যখন মসজিদে প্রবেশ করেছিলে তখন এই দোয়া পড়েছিলেন, আল্লাহুম্মাফ তাহলি আবওয়াবা রাহমাতিক। অর্থ, হে আল্লাহ আমার জন্য আপনার রহমতের দরজা সমূহ খুলে দিন।

আর যখন আপনি মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া করলেন যে, হে আল্লাহ আমি আপনার নিকট হতে কল্যাণ প্রার্থনা করছি। আর অপরদিকে মসজিদে প্রবেশ করার সময় আল্লাহ তায়ালার কাছ থেকে রহমত প্রার্থনা করা হয়েছে। আর বের হওয়ার সময় প্রার্থনা করা হয়েছে আল্লাহ তায়ালার কাছ থেকে কল্যাণের জন্য। এখানে আপনি একটু চিন্তা করলেই বুঝতে পারবেন, রহমত ও কল্যাণের মাঝখানে বিশেষ কোনো পার্থক্য নেই। তবে কোরআন ও হাদিসের পরিভাষায় গভীর ভাবে পর্যবেক্ষন করলে শব্দ দুটোর মাঝে বিস্তর পার্থক্য রয়েছে।

আল্লাহ তাআলা আমাদের সবাই কে মসজিদ থেকে বের হওয়ার দোয়া আরবি অথবা বাংলা বলে বের হওয়ার এবং উক্ত দোয়ার উপর আমল করার তৌফিক দান করুন। আমিন

আরো পড়তে পারেন, মসজিদে প্রবেশের দোয়া।

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More